“উইকেটের বল দেখে খেলবো ভেবেই নেমেছিলাম”- সোনু নারায়ণ নৌবাগ।


তপন মেমোরিয়ালের বিপক্ষে দেশবন্ধু পার্ক ওভালে ম্যাচ খেলতে নেমেছে ক্যালকাটা কাস্টমস। কাস্টমসের প্রথম ইনিংসে করা ১৬৪ রানের জবাবে যখন লাল বলে অনভিজ্ঞ তপন ব্যাট করতে নামল, তখন সুরজ সিন্ধু জয়সওয়ালের দাপটে বেশ চাপে পড়েছিল তারা। কিন্তু চাপ কাটিয়ে কাস্টমসকে ৬৪ রানের লিড দিয়েছে তপন দল। এই লিড পাওয়ার অন্যতম কারণ হলেন চুঁচুড়ার সোনু নারায়ণ নৌবাগ। লাল বলের ক্রিকেটে একজন ভালো ব্যাটার সোনু। আজ সোনুর ৭৮ রানের ইনিংস না থাকলে বেশ চাপে থাকতো তপন।


শুরু থেকে নিজের খেলার প্ল্যানিং নিয়ে কথা বললেন সোনু।
প্রশ্ন:- এতো ভালো ইনিংসের জন্য অভিনন্দন।
সোনু:- ধন্যবাদ।
প্রশ্ন:- আজ সকালবেলা কি প্ল্যান ছিল?
সোনু:- নিজের রানের জন্য খেলছিলাম না। বল যেমন পড়ছিল সেরকম খেলছিলাম। আমি অফ স্টাম্পের বাইরের বল খেলিনি, স্টাম্পের বলেই রানের জন্য গিয়েছিলাম। জানতাম একটা লম্বা পার্টনারশীপ হলে অপোনেন্ট একটু চাপে থাকতো। সেটাই করতে পেরেছি।
প্রশ্ন:- অখিল কোহার আউট হওয়ার পরে সুরজ সিন্ধু জয়সওয়ালকে খেলার কি প্রস্তুতি ছিল?
সোনু:- প্রস্তুতি কিছুই ছিল না। আমি স্টাম্পের বল ঠিকঠাক খেলছিলাম। পসিটিভ খেলছিলাম আমি, মারার বল দিলে মারতাম অবশ্যই।
প্রশ্ন:- কাইফ আহমেদ কি বলছিল ব্যাট করার সময়ে?
সোনু:- কাইফের সাথে আমার লম্বা পার্টনারশীপ করারই কথা হচ্ছিল। বল নড়ছিল বলে ওর একটু অসুবিধা হচ্ছিল, কারণ ও সাদা বলে বেটার প্লেয়ার। আমি ওকে বলি যে আর কিছু ওভার পরে স্পিনার আসবে তখন তুমি তোমার স্বাভাবিক খেলা খেলবে।
প্রশ্ন:- সেঞ্চুরির কাছাকাছি গিয়ে ৭৮ রানে আউট হওয়া কতটা খারাপ লাগলো?
সোনু:- খারাপ লেগেইছে কারণ বড়ো রান হলে ২৫ এর দলের ঢোকার একটা ভালো দাবি থাকতো। একটা ভুল হয়ে গিয়েছে কারণ আমি সেটা ছিলাম এবং ক্যারি করছিলাম, সেখানে আউট হওয়া খারাপ। শট সিলেকশনে গন্ডগোল হয়েছে বলেই আউট হলাম।